১০ দিনের মধ্যে পাপুলের স্ত্রী ও মেয়েকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ!

0
74

এমপি পদের সুবিধা দেখিয়ে জামিন চেয়েও লাভ হলো না। উল্টো ১০ দিনের মধ্যে এমপি পাপুলের স্ত্রী এমপি সেলিনা ইসলাম ও মেয়ে ওয়াফা ইসলামকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। সরাসরি খারিজ করা হয় জামিন আবেদন। দুদক আইনজীবী বলেন, সংসদ সদস্যের পদকে কলঙ্কিত করেছেন পাপুল দম্পতি।

মানব ও অর্থপাচারের মামলায় লাক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম পাপুল কুয়েতে গ্রেফতারের পর তার অঢেল সম্পদের অনুসন্ধানে নামে দুদক। প্রাথমিক অনুসন্ধানে পাপুল ও তার স্ত্রী সংসদ সদস্য সেলিনা ইসলামের বিরুদ্ধে ১৪৮ কোটি পাচারের তথ্য মিলে। পাচারের ক্ষেত্রে মেয়ে ওয়াফা ও শ্যালিকাকে ব্যবহার করেন তারা।

পাপুল যখন কুয়েতে জেলের মধ্যে তখন দেশে থাকা স্ত্রী তার এমপি পদের সুবিধা নিয়ে আগাম জামিন চান উচ্চ আদালতে। সঙ্গী হন মেয়ে ওয়াফা। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে উচ্চ আদালত জামিন তো দেননি বরং ১০ দিনের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন।

ডেপুটি অ্যার্টনি জেনারেল আমিন উদ্দিন মানিক বলেন, তাদের আবেদন নাকচ করে দিয়েছেন আদালত এবং তাদের ১০ দিনের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলেছেন।

এমপি সেলিনা ইসলামের আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা বলেন, যেহেতু আদালত ১০ দিনের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন সেহেতু আমরা ১০ দিনের মধ্যে আদালতের আদেশের কপি নিয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

দুদক আইনজীবী বলছেন, পাপুল দম্পতি এমপি পদকে কলঙ্কিত করেছেন। তদন্তে তাদের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের ভয়াবহ তথ্য উঠে আসছে।

দুর্নীতি দমন কমিশনের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান বলেন, একজন সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য হয়ে উনি যে অপরাধ করেছেন সেটার মাধ্যমে উনি পুরো সংসদ সদস্যদের কলঙ্কিত করেছেন।

কুয়েতে পাপুলের মামলায় রায় ঘোষণার দিন ধার্য রয়েছে ২৮ জানুয়ারি।

এদিকে ৫ বছরেও বেসিক ব্যাংকের চার হাজার কোটি টাকা ঋণ জালিয়াতির মামলার অভিযোগপত্র না দিতে পারায় দুদকের ওপর ক্ষুব্ধ উচ্চ আদালত। ব্যাংকটির এক কর্মকর্তার জামিন শুনানিতে এ অসন্তোষ প্রকাশ করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email