ঢাকা বাড্ডায় অপহূত দুই যুবক র‌্যাব-১ হা‌তে গাজীপুরে উদ্ধার, নারীসহ গ্রেপ্তার ৫

0
186

ঢাকা বাড্ডায় অপহূত দুই যুবক র‌্যাব-১ হা‌তে গাজীপুরে উদ্ধার, নারীসহ গ্রেপ্তার ৫

স্টাফ রি‌পোর্টার মোঃ জসীম উদ্দীন চৌধুরীঃ

বাংলাদেশ একটি উন্নয়নশীল দেশ। আমাদের উন্নতির পথে যে সকল বাধা বিপত্তি রয়েছে তার মধ্যে, অস্থিতিশীল আইন শৃংখলা পরিস্থিতি অন্যতম। এরকম একটি পরিস্থিতিতে যখন সমাজের প্রত্যেকটা মানুষ অনিশ্চিয়তার মাঝে ভুগছিল, তখন পুলিশ বাহিনীর কার্যক্রমকে আরো গতিশীল ও কার্যকর করার লক্ষ্যে সরকার একটি এলিট ফোর্স গঠনের পরিকল্পনা করে। ক্রমান্বয়ে সভা-সমন্বয়, আলোচনা ও গবেষনার পর সরকার, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তত্ত্ববধানে বাংলাদেশ পুলিশের অধীনে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন সংক্ষেপে র‌্যাব ফোর্সেস নামে বংলা‌দেশ পুলিশ, বংলা‌দেশ সেনা, নৌ ও বিমান বা‌হিনীর সদস্যদের নিয়ে একটি এলিট ফোর্স গঠনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। গত ২৬ মার্চ ২০০৪ তারিখে জাতীয় স্বাধীনতা দিবস প্যারেডে অংশ গ্রহনের মাধ্যমে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) জনসাধারনের সামনে আত্মপ্রকাশ করে। জন্মের পরপরই এই ফোর্সের ব্যাটালিয়নসমূহ সাংগঠনিক কর্মকান্ডে ব্যস্ত থাকে এবং স্ব স্ব এলাকা সম্পর্কে গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ শুরু করে। এর মাঝে প্রথম অপারেশনাল দায়িত্ব পায় ১৪ এপ্রিল ২০০৪ তারিখে পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান-রমনা বটমুলে নিরাপত্তা বিধান করার জন্য । এর পর আবার র‌্যাব মূলত তথ্য সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত ছিল। গত ২১ জুন ২০০৪ থেকে র‌্যাব ফোর্সেস পূর্ণাঙ্গভাবে অপারেশনাল কার্যক্রম শুরু করে।
সে মোতা‌বেক-রাজধানীর বাড্ডায় অপহূত দুই যুবককে গাজীপুর শহরের পশ্চিম বিলাশপুরের একটি বাসা থেকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে অচেতন অবস্থায় তাঁদের উদ্ধার করা হয়। এ সময় আটক করা হয়েছে এক তরুণীসহ পাঁচজনকে।

আটককৃতরা হলেন অপহরণচক্রের মূলহোতা নিজাম (৩৪), জনি মিয়া (২১), তুষার চন্দ্র বর্মণ (২১), ফয়সাল মাহমুদ আলম (২১) ও মলিনা আক্তার সিমু (২৭)। পোশাক কারখানায় চাকরির আড়ালে তাঁরা অপহরণ ও মুক্তিপণ আদায় করতেন বলে র‌্যাবের কাছে স্বীকার করেছেন।
র‌্যাব-১ গাজীপুর ক্যাম্পের কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল-মামুন‌ হেমন্ত টি‌ভি‌কে জানান, গত ৩১ আগস্ট বিকেলে বাড্ডা এলাকার সোবহান সরকারের ছেলে সজল সরকার (৩২) ও বেড়াইদের (চটকিপাড়া) মৃত আবুল হাশেমের ছেলে ডালিম (৩৫) নিখোঁজ হন। তাঁদের খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে ওই দিন রাতে বাড্ডা থানায় অভিযোগ করে পরিবার। রাতে অপহূতদের মোবাইল ফোনসেট থেকে পরিবারকে ফোন দিয়ে মুক্তিপণ হিসেবে পাঁচ লাখ টাকা দাবি করা হয়। টাকা না পেলে হত্যার হুমকি ও শারীরিক নির্যাতন শুরু করে দুর্বৃত্তরা। একপর্যায় অপহরণকারীদের বিকাশের মাধ্যমে ২০ হাজার টাকা দেওয়া হয়। স্বজনদের পক্ষ থেকে বিষয়টি র‌্যাবকে জানানো হয়।

Print Friendly, PDF & Email